প্রধানমন্ত্রীরদপ্তর

‘স্বচ্ছতাই সেবা’ আন্দোলনের সূচনায় প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ

Posted On: 18 SEP 2018 4:46PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১

দেশের প্রত্যেক প্রান্ত থেকে এই অনুষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত স্বচ্ছতায় আগ্রহী সকলকে আমি আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। আপনাদের সকলকে স্বাগত জানাই। আজ ১৫ সেপ্টেম্বর, একটি ঐতিহাসিক দিন। ঐতিহাসিক এজন্য যে আজকের সকাল একটি নতুন সংকল্প, এক নতুন উৎসাহ, এক নতুন স্বপ্ন নিয়ে এসেছে। আজ আপনি, আমি, ১২৫ কোটি দেশবাসীকে সঙ্গে নিয়ে আরেকবার ‘স্বচ্ছতাই সেবা’ সংকল্প নিয়ে কাজ করতে যাচ্ছিআজ থেকে শুরু করে দোশরা অক্টোবর অর্থাৎ পূজনীয় বাপুজির জন্মজয়ন্তী দিবস পর্যন্ত আমরা সবাই একটি নতুন প্রাণশক্তি নিয়ে, নতুন উদ্যমে দেশকে পরিচ্ছন্ন করে তোলার জন্য শ্রমদানের মাধ্যমে এই আন্দোলনে অংশগ্রহণ করব।

 

দীপাবলীর সময় আমরা দেখি যে, বাড়িঘর যত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নই হোক না কেন, পরিবারের সমস্ত সদস্য বাড়ির প্রত্যেক কোণ পরিষ্কার করার কাজে লেগে পড়ে। তেমনই আমাদের দেশের প্রত্যেক কোণাকে পরিষ্কার করব আর এই পরিচ্ছন্নতাকে নিজেদের স্বভাবে পরিণত করব।

 

চার বছর আগে যে অভিযান শুরু হয়েছে, এই পরিচ্ছন্নতা অভিযান আজ এক গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে। আমরা গর্বের সঙ্গে বলতে পারি যে, দেশের জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে আবালবৃদ্ধবণিতা আমার সাথীরা এই মহাঅভিযানকে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন। প্রত্যেক গ্রামের প্রতিটি গলি, চৌমাথা, শহরের প্রত্যেক এলাকা এই অভিযানে সামিল হবে।

 

২০১৪ সালে দেশে পরিচ্ছন্নতার কভারেজ ছিল ৪০ শতাংশ। আর আজ আপনাদের সকলের সংকল্প ও পরিশ্রমের ফলস্বরূপ দেশে পরিচ্ছন্নতার কভারেজ হয়েছে ৯০ শতাংশ। কে ভেবেছিলেন যে, মাত্র চার বছরে আমরা পরিচ্ছন্নতার ক্ষেত্রে এতটা সাফল্য পাব, যা পূর্ববর্ত্যী ৬০-৬৫ বছরেও সম্ভব হয়নি। কেউ কি ভেবেছিলেন যে, ভারতে মাত্র চার বছরে প্রায় ৯ কোটি শৌচালয় হয়েছে। কেউ কি কল্পনা করেছিলেন যে, মাত্র চার বছরে দেশের ৪৫০টিরও বেশি জেলা উন্মুক্ত স্থানে প্রাকৃতিক কর্ম থেকে মুক্ত হিসাবে ঘোষণা করা হবে। কেউ কি এটাও কল্পনা করেছিলেন যে, চার বছরে দেশের ২০টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল উন্মুক্ত স্থানে প্রাকৃতিক কর্ম থেকে মুক্ত ঘোষণা করা হতে পারে!

এসব কিছু সম্ভব হয়েছে, সমস্ত ভারতবাসীর প্রচেষ্টায়, আপনাদের মতো স্বচ্ছতায় আগ্রহী সকলের মিলিত প্রচেষ্টায় শুধু সরকারি প্রচেষ্টায় এই পর্যায়ে পরিবর্তন কখনও সম্ভব নয়। স্বাস্থ্য হোক কিংবা সম্পদ, পরিচ্ছন্নতা মানুষের জীবনে পরিবর্তন আনতে অনেক বড় ভূমিকা পালন করছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমান অনুসারে এই পরিবর্তন বছরে ৩ লক্ষ মানুষের জীবন বাঁচাবে আর একটি সমীক্ষা অনুসারে এই পরিচ্ছন্নতা অভিযান ডায়ারিয়া হ্রাসের ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ সাফল্য আনতে সক্ষম হবে।

 

কিন্তু ভাই ও বোনেরা, শুধু শৌচালয় নির্মাণ করলে আর সবাই শৌচালয় ব্যবহার করলেই যে ভারত পরিচ্ছন্ন হয়ে যাবে – এমনটা নয়। শৌচালয়ের পাশাপাশি ডাস্টবিনের ব্যবহার বৃদ্ধি, নিয়মিত আবর্জনা পরিষ্কার করার ব্যবস্থা করতে হবে। পরিচ্ছন্নতাকে প্রত্যেকের নৈমিত্তিক স্বভাবের অংশ করে তুলতে হবে। এই অভিযানকে আমাদের স্বভাব পরিবর্তনের যজ্ঞে রূপান্তরিত করতে হবে। এক্ষেত্রে দেশের প্রত্যেক নাগরিকের নিজের মতো করে সক্রিয় অংশগ্রহণ জরুরি।

 

আজ আমি ‘স্বচ্ছ ভারত মিশন’-এ অংশগ্রহণকারীদের অভিজ্ঞতা শুনব, আপনাদের থেকে কিছু শিখব এবং তারপর আমরা সবাই মিলে শ্রমদান করব। আজ আমরা ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের কথা শুনব। যেখানে যেরকম কাজ হচ্ছে সেটা সরাসরি দেখার সুযোগ পাব।

 

আমি আজ আরেকবার দেশবাসীকে বলতে চাই যে, আমরা সারা দেশের স্বেচ্ছায় আগ্রহীদের সংকল্প ও সমর্পণ দেখেছি, শুনেছি, জেনেছি, প্রত্যক্ষ করেছি; কেমন অভূতপূর্ব কর্মযজ্ঞ! দেশের বড় বড় গণ্যমান্য মানুষেরা এভাবে প্রায় দু’ঘন্টা ধরে এ ধরণের কাজে হাত লাগানো, প্রকৃত কর্মীদের নানা সমস্যা ও অভিজ্ঞতার কথা সরেজমিনে যাচাই এবং সমাধানের প্রচেষ্টা দেখে আমরা বুঝেছি সারা দেশে আজ ১২৫ কোটি জনগণ এই আন্দোলনকে বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরেছেন। বিশ্ববাসী দেখছেন।

 

ভবিষ্যতে যখনই এই জনআন্দোলন সম্পর্কে লেখা হবে, তখন আপনাদের মতো সমস্ত স্বচ্ছতার কাজে অংশগ্রহণকারীদের নাম সোনালী অক্ষরে লেখা হবে। যেভাবে আজ আমরা স্বাধীনতা সংগ্রামীদের ও শহীদদের শ্রদ্ধার দৃষ্টিতে দেখি, পূজনীয় বাপুজির সুযোগ্য উত্তরাধিকারী রূপে আপনাদের অবদানকেও তেমনই শ্রদ্ধা ও সম্মানের দৃষ্টিতে দেখা হবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস। কারণ, আপনারা রাষ্ট্রের নব-নির্মাণ, দরিদ্র ও দুর্বল মানুষের জীবন বাঁচিয়ে বিশ্বে দেশের মর্যাদা পুনঃপ্রতিষ্ঠার সংগ্রামের একেকজন সৈনিক হয়ে উঠেছেন। ১২৫ কোটির শক্তি অসীম ও অনন্ত, আমাদের উৎসাহে জোয়ার এসেছে, বিশ্বাস তুঙ্গে এবং আমাদের সংকল্প সিদ্ধির পথে এগিয়ে চলেছে। আপনারা সবাই শ্রমদানের জন্য প্রস্তুত ও তৎপর। আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক শুভেচ্ছা জানিয়ে এখন বিদায় নিচ্ছি, কারণ এখন আমিও কোথাও আপনাদের সঙ্গে শ্রমদানের কাজে হাত লাগাবো।

 

আমি আরেকবার আপনাদের প্রেরণা ও কর্মতৎপরতার জন্য সকলকে অন্তর থেকে অভিনন্দন জানাই। সমস্ত মহাপুরুষদের প্রণাম জানিয়ে আমার বক্তব্য সম্পূর্ণ করছি। অনেক অনেক ধন্যবাদ।

 

CG/SB/SB…



(Release ID: 1546520) Visitor Counter : 10

Read this release in: English