জাহাজচলাচলমন্ত্রক

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী আগামী সোমবার বারাণসীতে গঙ্গা নদীর ওপর নির্মিত মাল্টি-মোডাল টার্মিনাল জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করবেন

Posted On: 08 NOV 2018 6:59PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ৮ নভেম্বর, ২০১৮

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী আগামী সোমবার (১২ই নভেম্বর) বারাণসীতে গঙ্গা নদীর ওপর নব-নির্মিত মাল্টি-মোডাল টার্মিনাল জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করবেন। গঙ্গা নদীতে যে তিনটি টার্মিনাল তৈরি হচ্ছে, এটি তার প্রথম। কেন্দ্রীয় সরকারের জলমার্গ বিকাশ প্রকল্পের অঙ্গ হিসাবে এই টার্মিনালগুলি তৈরি করা হচ্ছে। উদ্দেশ্য, বারাণসী থেকে হলদিয়া পর্যন্ত ১ নম্বর জাতীয় জলপথে পণ্যবাহী বৃহদায়তন জলযান চলাচলে সুবিধা প্রদান করা। সেইসঙ্গে, ১ নম্বর জাতীয় জলপথের বারাণসী থেকে হলদিয়া পর্যন্ত অংশে জলের গভীরতা দুই-তিন মিটার পর্যন্ত বজায় রাখা। নতুন এই সুবিধার দরুণ, গঙ্গা নদীর এই অংশে ১,৫০০ থেকে ২,০০০ টন ওজনবিশিষ্ট জলযান চলাচল সম্ভব হবে। এর ফলে, পণ্য পরিবহণের ক্ষেত্রে স্বল্প খরচে অভ্যন্তরীণ জলপথের ব্যবহার বৃদ্ধি পাবে। একইভাবে, পণ্য পরিবহণের ক্ষেত্রে এ ধরণের মাধ্যম অনেক বেশি পরিবেশ-বান্ধব হয়ে উঠবে। ভারতের অভ্যন্তরীণ জলপথ কর্তৃপক্ষ, জলমার্গ বিকাশ প্রকল্পের আওতায় টার্মিনাল গড়ে তোলার কর্মসূচি রূপায়ণ করছে।

বিশ্বব্যাঙ্কের কারিগরি ও আর্থিক সহায়তায় হলদিয়া থেকে বারাণসী পর্যন্ত ১ নম্বর জাতীয় জলপথ প্রকল্পটি রূপায়িত হচ্ছে। প্রকল্প রূপায়ণের আনুমানিক খরচ ধরা হয়েছে ৫,৩৬৯ কোটি ১৮ লক্ষ টাকা। এই খরচের অর্ধেক পাওয়া যাবে বিশ্বব্যাঙ্কের কাছ থেকে। প্রকল্পের বাকি অর্ধেক ব্যয় বহন করবে কেন্দ্রীয় সরকার। এই প্রকল্পের আওতায় বারাণসী, সাহেবগঞ্জ এবং হলদিয়ায় তিনটি মাল্টি-মোডাল টার্মিনাল নির্মাণ করা হচ্ছে।

বারাণসীতে নির্মীয়মান মাল্টি-মোডাল টার্মিনালটির কয়েকটি বৈশিষ্ট্য হল – ১ নম্বর জাতীয় জলপথে এটি প্রথম টার্মিনাল, টার্মিনালটি ৩৩.৩৪ হেক্টর জমির ওপর গড়ে তোলা হচ্ছে, প্রথম পর্যায়ের খরচ ২০৬ কোটি ৮৪ লক্ষ টাকা, টার্মিনালটির পণ্য পরিবহণ ক্ষমতা বার্ষিক ১.২৬ মেট্রিক টন, প্রকল্পের সূচনা হয়েছিল ২০১৬-র জুনে এবং প্রকল্পটির নির্মাণ কাজ শেষ হচ্ছে চলতি বছরের নভেম্বরে।

নির্মীয়মান এই মাল্টি-মোডাল টার্মিনালটির পরিচালনা, রক্ষণাবেক্ষণ ও উন্নয়নমূলক কাজ সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে করার প্রস্তাব রয়েছে। এজন্য আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বানের প্রক্রিয়া চলছে। সমগ্র প্রক্রিয়াটি আগামী ডিসেম্বর নাগাদ শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই প্রকল্পটিতে পাঁচশো জন মানুষের প্রত্যক্ষ এবং দু’হাজারের বেশি মানুষের পরোক্ষ কর্মসংস্থানের সুযোগ রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী কলকাতা থেকে গত ৩০শে অক্টোবর রওনা দেওয়া পেপসিকো সংস্থার পণ্যবাহী জলযানটিকে আগামী সোমবার (১২ই নভেম্বর) বারাণসীতে স্বাগত জানাবেন। এটি ভারতের প্রথম পণ্যবাহী কন্টেনার জলযান। ফেরার সময় এই জলযানটি রাষ্ট্রায়ত্ত ইফকো সংস্থার উৎপাদিত সার নিয়ে কলকাতায় ফিরবে।

ঐদিন অন্য এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী, দুটি জাতীয় মহাসড়ক - বাবতপুর-বারাণসী বিমানবন্দর সড়ক এবং বারাণসী রিং রোড প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন। এছাড়াও তিনি বারাণসীতে নিকাশি প্রকল্পের সূচনা এবং জাতীয় পরিচ্ছন্ন গঙ্গা মিশনের ‘নমামী গঙ্গে’ কর্মসূচির আওতায় একটি প্রকল্পের শিলান্যাস করবেন।

 

CG/BD/DM/…



(Release ID: 1552147) Visitor Counter : 12

Read this release in: English